এভারেস্ট শিখরে অরুণাচলের তৃতীয় নারী – মুরি লিঙ্গি

এভারেস্ট শিখরে অরুণাচলের তৃতীয় নারী – মুরি লিঙ্গি

পৃথিবীর আকর্ষণীয় কেন্দ্রবিন্দুগুলির মধ্যে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ হল মাউন্ট এভারেস্টে পদার্পণ I মাউন্ট এভারেস্ট হিমালয় পর্বতমালায় অবস্থিত বিশ্বের সর্বোচ্চ শৃঙ্গ যার উচ্চতা 8,848 মিঃ (National Geographic Society অনুযায়ী 8,850 মিঃ) I এভারেস্ট বিজয়, পর্বতারোহীর কাছে যেনো জীবনের সর্গ সুখের অনুভূতি I তাই তো এই প্রয়াসের নিরন্তরতায় কোন ফাঁক নেই I অনেক ইতিহাস সাক্ষী রেখে 1953 সালে এডমন্ড হিলারি ও তেনজিং নোরগে প্রথম এভারেস্টের চূড়ায় পৌঁছানোর পর এই আকর্ষণের মহিমা যেনো হাজারগুণ বেড়ে গেছে I অপ্রাপ্তবয়স্ক (তিব্বতের মিং কিগা শেরপা, 14 বছর) থেকে প্রৌঢ় (নেপালের মিন বাহাদুর শেরচান, 71 বছর) কেওই এই মোহজালের বাইরে নেই I নারীপুরুষ, আবালবৃদ্ধবনিতা নির্বিশেষে এভারেস্টের শিখর সকলকেই যেনো হাতছানি দেয় I তাই হয়তো চল্লিশোর্ধ মুরি লিঙ্গি পৌঁছে গেলেন এভারেস্ট শিখরে I

এভারেস্ট শিখরে অরুণাচলের তৃতীয় নারী - মুরি লিঙ্গি
চিত্রঃ মাউন্ট এভারেস্ট

ভারতে শুরুটা হয় 1984 সালে প্রথম ভারতীয় মহিলা পর্বতারোহী বাচেন্দ্রি পালের পায়ে ভর করে I এর পর বিভিন্ন সময়ে এভারেস্ট বিজয়ের হাতছানিতে কত নাম জানা না জানা পর্বত প্রেমী এভারেস্টের আকর্ষণে সাড়া দিয়ে পৌঁছে গেছে তার শিখরে, কেও বা আবার হারিয়ে গেছে অশান্ত হিমালয়ের গহন বরফের স্তুপে I তবু এ আকর্ষণ যে বিচ্ছিন্ন হওয়ার নয় তা আরেকবার প্রমাণ করে দিল অরুণাচল প্রদেশের চার সন্তানের জননী মুরি I

এভারেস্ট শিখরে অরুণাচলের তৃতীয় নারী - মুরি লিঙ্গি
চিত্রঃ দেশের পতাকা নিয়ে মুরি লিঙ্গি (সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা)

অরুণাচল প্রদেশের ইতিহাসে হিমালয় জয়ের সূচনা হয় উচ্চ দিবং উপত্যকার কণ্যা তিনে মিনো (Tine Mino)র পায়ে ভর করে 9 মে, 2011 সালে; যখন তিনি উত্তর-পূর্ব ভারতের প্রথম পর্বতারোহী হিসাবে এভারেস্টে পদার্পণ করে ভারতীয় ধ্বজা উত্তোলন করেন I এর পর অরুণাচল প্রদেশের বুমডিলা প্রদেশের কণ্যা অনশু জামসেনপা (Ansu Jamsenpa) 2012 সালে প্রথমবার এবং 21 মে, 2017 সালে দ্বিতীয় বারের জন্য মাউন্ট এভারেস্টের শিখরে পৌঁছান I তাঁদের উত্তরসূরি হিসাবে এবং অরুণাচল প্রদেশের তৃতীয় নারী হিসাবে গত 14 মে,2018 সকাল 8 টায় এভারেস্টের মাথায় ভারতের পতাকা ওড়ান মুরি I

মুরি লিঙ্গি অরুণাচল প্রদেশের নিম্ন দিবং উপত্যকার বাসিন্দা এবং চার কন্যার মাতা I বয়স চল্লিশের কোঠায় I তিনি রোয়িং থেকে নেপালের কাঠমান্ডুর উদ্দেশ্যে রওনা দেন 7 ই এপ্রিল এবং ১২ এপ্রিল লুকলা থেকে যাত্রা শুরু করে ২০ এপ্রিল তিনি বেস ক্যাম্পে পৌঁছান। প্রতিকূল আবহাওয়া সত্বেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তিনি বেস ক্যাম্প থেক বেরিয়ে পড়েন এবং ১০ মে রাত ১টা নাগাদ শীর্ষারোহণের শেষ চড়াই শুরু করেন I এখান থেকে দীর্ঘ ও ক্লান্তিময় পাঁচ দিনের পথ রাত দিন হেঁটে প্রায় সাড়ে তিন দিনে শেষ করে ১৪ মে, সকাল ৮ টায় জীবনের আকাঙ্ক্ষিত শিখর স্পর্শ করেন I

এভারেস্ট শিখরে অরুণাচলের তৃতীয় নারী - মুরি লিঙ্গি
চিত্রঃ মুরি লিঙ্গি এভারেস্ট শিখরে পৌঁছে দিয়েছেন ‘बेटी बँचाओ, बेटी पढ़ाओ’ মন্ত্র (Photo Source – prathamkhabar.com)

তাঁর এই সাফল্যে নারী সমাজে নূতন আলোর শিখা উঁকি দিয়েছে, তিনি এভারেস্ট শিখরে পৌঁছে দিয়েছেন ‘बेटी बँचाओ, बेटी पढ़ाओ’ মন্ত্র I অরুণাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী পেমা খানডু মুরি কে অভিনন্দন জ্ঞাপন প্রসঙ্গে বলেন “Linggi has made us all proud. In her effort, she has also taken along the message of Prime Minister Narendra Modi Ji’s ‘Beti Bachao, Beti Padao’.”

তথ্যসূত্রঃ আনন্দবাজার পত্রিকা, প্রথমখবর.কম, ভারত ও পশ্চিমবঙ্গের ভূগোল, ইন্টারনেট I

লেখকঃ গোপাল মণ্ডল (সহকারী সম্পাদক, মিশন জিওগ্রাফি ইন্ডিয়া)।

এখান থেকে শেয়ার করুন
  • 55
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    55
    Shares

Leave a Reply

মন্তব্য করুন

error: মিশন জিওগ্রাফি ইন্ডিয়া কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত