গ্লোবাল ওয়ার্মিং এর ফলে বিলুপ্ত হতে পারে ৩৩ টি জীববৈচিত্র্য অঞ্চলের অর্ধেক প্রজাতি

মিশন জিওগ্রাফি ইন্ডিয়া: গ্লোবাল ওয়ার্মিং এর ফলে বিলুপ্ত হতে পারে আমাজন, মাদাগাস্কার, পূর্ব হিমালয় সহ বিশ্বের ৩৩ টি জীববৈচিত্র্য অঞ্চলের ২৫-৫০% প্রজাতি, এক রিপোর্টে এমনই আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে। WWF কর্তৃক Climatic Change জার্নালে প্রকাশিত ওই রিপোর্টে গ্লোবাল ওয়ার্মিং পৃথিবীর জীববৈচিত্র্যের ওপর কিরূপ ক্ষতিকর প্রভাব ফেলবে তা বলা হয়েছে।

রিপোর্টে বিশ্বের ৩৩ টি জীববৈচিত্র্যের ‘Priority Place’ এর ওপর সমীক্ষা ও গবেষণা করা হয়েছে। এই ৩৩ টি অঞ্চলের মধ্যে রয়েছে আমাজন, মাদাগাস্কার, পূর্ব হিমালয়, দক্ষিণ চিলি, বোর্ণিও – সুমাত্রা, পশ্চিম আফ্রিকা, নামিবিয়া মরুভূমি, দঃ-পঃ অস্ট্রেলিয়া, উপকূলীয় পূর্ব আফ্রিকা প্রভৃতি। ৮০ হাজার স্থলজ উদ্ভিদ, স্তন্যপায়ী, পাখি, উভচর, সরীসৃপ প্রজাতির ওপর জলবায়ু পরিবর্তন অধ্যয়ন করে এই রিপোর্ট তৈরি করা হয়েছে। কার্বন উদগিরণ হ্রাস না করলে, ৪.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস উষ্ণতা বৃদ্ধিতে আমাজন অঞ্চলের ৬৯% উদ্ভিদ প্রজাতি বিলুপ্ত হতে পারে। দঃ আফ্রিকার মিওম্বো অঞ্চলের ৯০% উভচর, ৮৬% পাখি ও ৮০% স্তন্যপায়ী বিলুপ্ত হতে পারে। ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস বা তার বেশি উষ্ণতা বৃদ্ধি পৃথিবীর জীববৈচিত্র্যের ওপর ভয়ঙ্কর আঘাত হানবে বলে বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন। ৩.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস উষ্ণতা বৃদ্ধিতে ওই ৩৩ টি অঞ্চলের ৩৭% প্রজাতি বিলুপ্ত হতে পারে। তবে যদি ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে উষ্ণতা বৃদ্ধিকে বেঁধে রাখা যায়, তবে ক্ষতির পরিমাণ অনেকটাই কমবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন বিজ্ঞানীরা। সেক্ষেত্রে, ওই ৩৩ টি অঞ্চলের মাত্র ২০-২৫% প্রজাতিই বিলুপ্ত হতে পারে। ২০১৫ সালের প্যারিস জলবায়ু চুক্তির দিকে তাকিয়ে বিজ্ঞানীদের আশা কার্বন নিঃসরণ কমিয়ে গ্লোবাল ওয়ার্মিংকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে গোটা বিশ্ব একজোট হবে।

-অরিজিৎ সিংহ মহাপাত্র।। 

এখান থেকে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

মন্তব্য করুন

error: মিশন জিওগ্রাফি ইন্ডিয়া কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত