আজ ২২ শে মার্চ, বিশ্ব জল দিবস || World Water Day 2020

আজ ২২ শে মার্চ, বিশ্ব জল দিবস (World Water Day)। জল আমাদের জীবন। জল ছাড়া মানুষ বাঁচতে পারেনা। পৃথিবীতে মোট জলের পরিমান প্রায় ১৩৮.৬ কোটি ঘন কিমি। এর মধ্যে মোট লবণাক্ত জল ১৩৫.১ কোটি ঘন কিমি এবং মিষ্টি জল মাত্র ৩.৫ কোটি ঘন কিমি। United Nations এর সমীক্ষা অনুসারে বর্তমান পৃথিবীর ৭৬০ কোটি মানুষের ব্যবহারের উপযোগী জলের পরিমাণ এই সময় মাত্র ২ লক্ষ ঘন কিমি। সুতরাং, জল সংকটের হাত থেকে আমাদের রক্ষা পেতে হলে জলকে সংরক্ষণ করা খুব প্রয়োজন।

বিশ্ব জল দিবস
বিশ্ব জল দিবস: জল আমাদের জীবন

পরিসংখ্যান বলছে, বিশ্বের প্রতিটি মানুষ প্রতি দিন গড়ে ৩ থেকে ৫ লিটার জল পান করেন। তবে আমরা প্রতি দিন যে পরিমাণ জল পান করি তার বেশির ভাগ অংশই খাদ্যের সঙ্গে সম্পৃক্ত।

১৯৯২ সালের ডিসেম্বরে জাতিসংঘ সাধারণ সভা ২২ মার্চ তারিখটিকে বিশ্ব জল দিবস (World Day for Water or World Water Day) হিসেবে ঘোষণা করে। অর্থাৎ এছর ২৬ বছর পদার্পণ করলো। ১৯৯২ সালে ব্রাজিলের রিও ডি জেনিরোতে রাষ্ট্রসংঘ পরিবেশ ও উন্নয়ন সম্মেলনের (UNCED) এজেন্ডা ২১-এ প্রথম বিশ্ব জল দিবস পালনের আনুষ্ঠানিক প্রস্তাবটি উত্থাপিত হয়। ১৯৯৩ সালে প্রথম বিশ্ব জল দিবস পালিত হয় এবং তার পর থেকে এই দিবস পালনের গুরুত্ব ক্রমশ বৃদ্ধি পেতে থাকে।

বিশ্ব জল দিবস
World Water Day 2020 Theme: ‘Water and Climate Change’

বিশ্ব জল দিবস ২০২০ সালের থিম হল – ‘Water and Climate Change’। বিশ্ব জল দিবস ২০১৯ সালের থিম ছিল – ‘Leaving No One Behind’। বিশ্ব জল দিবস ২০১৮ সালের থিম ছিল – ‘Nature for Water’। ২০০৫ সাল থেকে জাতিসংঘ আয়োজিত বিশ্ব জল দশক ছিল ২০০৫ থেকে ২০১৫ পর্যন্ত, যার থিম ছিল — “Water For Life”

বিশ্ব জল দিবস
World Water Day: Save Water, Save Life

WHO এর মতে, প্রতিবছর দূষিত ও অস্বাস্থ্যকর পানীয় জল ব্যবহার করে ৮.৫ লক্ষ মানুষ প্রাণ হারান। সুতরাং বিশ্বের নাগরিক হিসেবে আজ জলদিবসে আসুন সবাই জল সংরক্ষণে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ হই।

বিশ্বের জলচিত্র
জলদিবসে বিশ্বের জলচিত্র

জলের অপর নাম জীবন। এই পৃথিবীতে প্রাণের উদ্ভব ও বিকাশ থেকে মানব সভ্যতার অগ্রগতি – জলের অবদান অগ্রগণ্য। কিন্তু বর্তমানে সারা বিশ্বের জলচিত্রটা ঠিক কিরকম? কোথায় দাঁড়িয়ে আছি আমরা? আসুন জল দিবসে একনজরে দেখে নিই বিশ্বের জলচিত্র

(১) বর্তমানে পৃথিবীতে ২১০ কোটি মানুষ বাড়িতে নিরাপদ জল (Safe Water) থেকে বঞ্চিত।

(২) প্রতি ৪ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটিতে পানীয়জলের কোনো পরিষেবা নেই।

(৩) প্রতিদিন গড়ে ৫ বছরের কম বয়সী ৭০০ ছেলেমেয়ে ডায়রিয়াতে মারা যায়, যার প্রধান কারনই হল দূষিত জল।

(৪) বিশ্বব্যাপী দূষিত জল ব্যবহারকারী মোট জনসংখ্যার ৮০% গ্রামীণ এলাকায় বসবাস করে।

(৫) জলসংকটের সময় প্রতি ১০ টি পরিবারের ৮ টিতে নারী ও মেয়েরাই জলসংগ্রহের কাজ করে থাকেন।

(৬) নিরাপদ পানীয়জল পরিষেবা লাভে সমস্যার জন্য ৬.৮৫ কোটি মানুষ বাসস্থান ত্যাগে বাধ্য হয়েছেন।

(৭) বর্তমানে ১৫.৯ কোটি মানুষ ভূপৃষ্ঠীয় জল (পুকুর, নদী প্রভৃতি) থেকে পানীয়জল সংগ্রহ করে থাকেন।

(৮) বর্তমানে ৪০০ কোটি মানুষ (যা পৃথিবীর মোট জনসংখ্যার দুই-তৃতীয়াংশ) বছরে কমপক্ষে ১ মাস চরম জলসংকটের মুখোমুখি হন।

তাই আসুন, জলের অপচয় বন্ধ করি। জলের গুরুত্ব সম্পর্কে জনসচেতনতা গড়ে তুলি। জলদূষণ প্রতিরোধ করি। নিরাপদ পানীয়জলের অধিকার নিশ্চিত করি।

-অরিজিৎ সিংহ মহাপাত্র

তথ্যসূত্রঃ উইকিপিডিয়া, রাষ্ট্রসংঘ, ইন্টারনেট

Content Protection by DMCA.com
এখান থেকে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মন্তব্য করুন

error: মিশন জিওগ্রাফি ইন্ডিয়া কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত