রাজ্যসভাতে পাশ নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল, ধর্মীয় শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দেবে ভারত

লোকসভার পর ১১ ই নভেম্বর বুধবার রাজ্যসভাতে দীর্ঘ বিতর্ক ও আলোচনার পর পাশ হয়ে গেল নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ২০১৯ (Citizenship Amendment Bill 2019)। এদিন রাজ্যসভাতে বিলটির পক্ষে ১২৫ টি ভোট পড়ে এবং বিপক্ষে ১০৫ টি ভোট পড়ে। এবার রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষর মিললেই বিলটি আইনে পরিণত হবে। যার ফলে দেশভাগের পর থেকে ২০১৪ সালের ৩১ শে ডিসেম্বর পর্যন্ত পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে ধর্মীয় কারণে ভারতে আগত সেদেশের সংখ্যালঘু শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দিতে চলেছে ভারত সরকার। হিন্দু, বৌদ্ধ, জৈন, শিখ, খ্রিস্টান, পার্সি ধর্মাবলম্বী শরণার্থীদেরই নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। তবে আসাম, মিজোরাম, মেঘালয় ও ত্রিপুরার উপজাতি অধ্যুষিত অঞ্চলে এবং অরুণাচল প্রদেশ, মিজোরাম, মণিপুর ও নাগাল্যান্ডের ইনার লাইন পারমিট অঞ্চলে এটি প্রযোজ্য হবে না। নতুন এই বিল অনুসারে, প্রবাসী ভারতীয় (Overseas Citizen of India) কেউ যদি কেন্দ্রীয় সরকার প্রবর্তিত কোনো আইন ভঙ্গ করেন, তবে তাঁর নাগরিকত্ব কার্ড বাতিল করা হতে পারে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ জানিয়েছেন, এই বিলের দ্বারা শরণার্থীদের অধিকার প্রদান করা হবে।

♦একনজরে CAB বা নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল যা লোকসভায় এবং রাজ্যসভায় পেশ হয়েছে :

(১) যে দিন আপনি ভারতে এসেছেন, সেইদিন থেকেই আপনি ভারতের নাগরিকত্ব লাভ করবেন, আপনার কোনো বৈধ কাগজ থাকুক বা না থাকুক, ঐ প্রবেশের দিন থেকেই আপনি ভারতের নাগরিক। আপনাকে শুধু প্রবেশের কথা লিখিতভাবে ঘোষণা করতে হবে।

(২) যাদের নাগরিকত্ব নেই, কিন্তু বাড়ি, গাড়ি বা চাকরি করছেন, এবং কোনো কোনো দল ভয় দেখাচ্ছে যে এখন পুলিশ ধরে নিয়ে যাবে আপনার নাগরিকত্ব নেই বলে,আপনি “অবৈধ অনুপ্রবেশকারী” বলে, তাদের ভয় পাওয়ার দরকার নেই। আপনি প্রবেশের দিন ঘোষণার সাথে সাথেই ভারতের নাগরিক হয়ে যাবেন, এবং আপনাকে কেউ  “অবৈধ অনুপ্রবেশকারী” আইনে গ্রেফতার বা অত্যাচার করতে পারবে না

“কংগ্রেস ধর্মের ভিত্তিতে দেশভাগ না করলে আজ CAB এর প্রয়োজন হত না।”

” অমুসলিমদের ভারতীয় নাগরিকত্ব পেতে রেশন কার্ডের কোনও দরকার নেই। যেদিন থেকে ভারতে এসেছেন সেদিন থেকে ভারতের নাগরিকত্ব পাবেন।” 

” নাগরিকত্বের আবেদন করার পর যদি কারও বিরুদ্ধে অনুপ্রবেশের অভিযোগ দায়ের হয় তাহলে নাগরিকত্ব পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তাঁর ওপর থেকে যাবতীয় অভিযোগ নিজে থেকেই প্রত্যাহার হয়ে যাবে। নাগরিকত্ব পাওয়ার পর কারও বিরুদ্ধে অনুপ্রবেশ সংক্রান্ত কোনও মামলা চালানো যাবে না।”

—- অমিত শাহ (স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, ভারত সরকার)

♦স্মরণীয় নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনে –

(১) আসাম NRC বাতিল।

(২) বৈধ কাগজপত্র ছাড়া যেসব শরণার্থীরা ভারতে এসেছেন অথবা সময়সীমা অতিক্রম করে যাওয়ার ভারতে থেকে গেছেন, তারাও নাগরিকত্বের জন্যে বিবেচিত হবেন।

(৩) ডিটেনশন ক্যাম্পে আর কোন অবৈধ শরণার্থী থাকবেননা কারণ কোন শরণার্থীই আর ‘অবৈধ শরণার্থী’ হবেন না। যারা থাকবেন, তারা অনুপ্রবেশকারী।

(৪) ষষ্ঠ তপশীলের অন্তর্গত আসাম, মেঘালয়, মিজোরাম আর ত্রিপুরার উপজাতি অঞ্চলগুলি এবং বেঙ্গল ইস্টার্ন ফ্রন্টিয়ার রেগুলেশনে(১৮৭৩) নথিভুক্ত ‘ইনার লাইন’ অঞ্চলে এই বিল প্রযোজ্য হবেনা।

(৫) বিলের ৫ নং ক্লজ, ১৮ নং ধারার ২ নং উপধারা তে একটা নতুন সংশোধনী যোগ করছে যার ভিত্তিতে নাগরিকত্ব প্রদানের উপযুক্ত পরিবেশ, বিধিনিষেধ এবং সার্টিফিকেট প্রদান পদ্ধতি নির্দিষ্ট করার অধিকার সম্পূর্ণভাবে কেন্দ্র সরকারের কাছে অর্পণ করা হয়েছে।

● এই আইনে নাগরিকত্বের সুবিধা নেবার জন্য
নিজেদের শরনার্থী বলে ঘোষনা করতে হবেনা। যারা ইতিমধ্যেই ভারতবর্ষে ছয় বছরের বেশী আছেন এবং ৩১শে ডিসেম্বর ২০১৪-এর পূর্বে এসেছেন এবং শেষ এক বছর ভারতবর্ষেই আছেন তারা প্রত্যেকেই এই আইনের সুবিধা পাবেন।

● ধর্মীয় কারণে অত্যাচারিত হয়ে দেশ ছাড়ার কোন প্রমান চাওয়া হবেনা।শুধুমাত্র ফর্মে একটি ঘোষনার কলাম থাকবে, সেখানে উল্লেখ করতে হবে।

● পঞ্চায়েতের সার্টিফিকেট, আধার কার্ড, পোস্ট আফিসের খাতা, ইলেক্ট্রিক বা ফোন বিল, ব্যাংকের পাশ বই বা অফিসের রেকর্ড সবই প্রমান বলে গণ্য হবে। যদি এসবের কিছু নাও থাকে তাহলে দুই জন পরিচিত যারা ইতিমধ্যেই ভারতবর্ষের বৈধ নাগরিক তারা আপনার ছয় বছর বসবাসের কথা ফর্মে লিখে দিলেও হবে।

● এই বিল পাশ হলে আসামের বাঙালিরা এই আইনের সুবিধা পাবেন, কারন এবারে মূল নাগরিকত্ব আইনটিই সংশোধন করা হচ্ছে এই সংশোধনীর মাধ্যমে।

● অমুসলিমদের ভারতীয় নাগরিকত্ব পাবার জন্য রেশন কার্ডের দরকার নেই। যেদিন থেকে ভারতে এসেছেন সেদিন থেকে ভারতের নাগরিকত্ব পাবেন বাই ডিফল্ট।

● নাগরিকত্বের আবেদন করার পর যদি কারও বিরুদ্ধে অনুপ্রবেশের অভিযোগ দায়ের থাকে! তাও, নাগরিকত্ব পাওয়ার পর কারও বিরুদ্ধে অনুপ্রবেশ সংক্রান্ত কোনও মামলা চালানো যাবে না। নাগরিকত্ব পাবার সাথে সাথে সেটি বাতিল হবে।

-মিশন জিওগ্রাফি ইন্ডিয়া 

তথ্যসূত্রঃ- আনন্দবাজার পত্রিকা ; Wiki

Content Protection by DMCA.com
এখান থেকে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মন্তব্য করুন

error: মিশন জিওগ্রাফি ইন্ডিয়া কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত